Help Center

×
Suggested articles

Requesting transfer of funds among tutors

Requesting transfer of funds among tutors

Requesting transfer of funds among tutors

Our Blogs

আপনার সন্তানের পড়ালেখায় মনযোগ ফিরিয়ে আনার ১০ টি কার্যকরী কৌশল জেনে নিন এখনই।

<p>করোনাকালীন প্রতিকূল সময়ে শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ নিয়ে আশঙ্কায় পড়েছেন অভিভাবকেরা। স্কুলের রুটিন মাফিক ক্লাস হচ্ছে না, পড়ালেখায় অনিয়ম, বাইরে যাওয়ায় নিষেধাজ্ঞা সব মিলিয়ে বাসায় থেকে একঘেয়েমি চেপে বসেছে। টিভি দেখে, মোবাইল, ইন্টারনেট, ইউটিউব, ভিডিও গেমস আর নানান ডিজিটাল ডিভাইসে সময়টা সীমাবদ্ধ হয়ে পড়ছে৷ নিয়ম করে পড়ার অভ্যেসটা যেনো ক্রমশই হ্রাস পাচ্ছে। অথচ ভবিষ্যত সুনিশ্চিত করতে শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার গতি অব্যাহত রাখা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।</p>

About This Post:

প্রত্যেক বাবা মা চান তার সন্তানকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত করে একজন ভালো মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে। কিন্তু সেই সন্তান যদি পড়াশোনায় অমনোযোগী হয় তাহলে তা নিয়ে বাবা মার চিন্তার শেষ থাকে না। অনেক অভিভাবকেরই অভিযোগ সন্তান একদমই অমনোযোগী। পড়াশোনায় অমনোযোগী এ সমস্যা আজকাল ঘরে ঘরে। এ সমস্যার সমাধান কি? আপনার সন্তানের পড়ালেখার গতি আর সতেজতা ফিরিয়ে আনার উপায় খুঁজে পাচ্ছেন না? তাহলে হাতের কিছু সময় ব্যয় করে জেনে নিন শিক্ষার্থীর পড়ার আগ্রহ তৈরির কিছু জরুরী কৌশল / অনন্য টিপস। ১। শুধু পরীক্ষায় পাশ করার জন্য নয়, শেখার আনন্দে পড়াঃ শুধু পরীক্ষায় ভালো নম্বর পাওয়ার জন্য পড়ালেখার নিয়ম আমাদের সমাজে নতুন নয়। তবে আসলেই কি এই নিয়ম সঠিক? একজন শিক্ষার্থী কে যখন ভালো রেজাল্ট করার জন্যে চাপ প্রয়োগ করা হয় তখন দেখা যায় পড়ালেখার প্রতি তার আগ্রহ কমে যায়। কিন্তু যদি তাকে এভাবে বলা হতো- " পরীক্ষায় না হয় পাশ করতেই পারবে কিন্তু এই বিষয় টি পড়ে তুমি কি কি শিখেছো আর তা কিভাবে তোমার প্রয়োজনীয় কাজে প্রয়োগ করবে?" তাহলে ব্যাপার টা কেমন হতো? এই প্রশ্নের জন্য হয়তো অনেক শিক্ষার্থীই প্রস্তুত নয়, অনেকেই এর উত্তর দিতে পারবে না। অতএব, সন্তান কি শিখছে তার উপর নজর দিন, সঠিক উপায়ে শিখলে পরীক্ষায় পাশ তো করবেই সাথে ভালো রেজাল্টও করবে। ২। লক্ষ্য স্থির করাঃ

একটি নির্দিষ্ট লক্ষ্য নিয়ে পড়তে বসা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যেমন - আজ সন্ধ্যার মধ্যে গণিতের ২ টা অধ্যায় শেষ করবোই, এমন একটা সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য ঠিক করলে লক্ষ্যটা অনেক বেশি কাজে আসবে, এবং লক্ষ্যপূরণ না হওয়া পর্যন্ত চেয়ার থেকে উঠতেই ইচ্ছা করবে না! একটা জেদ চেপে যাবে মনে, এবং আরো বেশি করে মনোযোগ চলে আসবে ভেতর থেকে। ৩। টেবিলে বসার অভ্যাসঃ

আপনার সন্তানকে টেবিলে-চেয়ারে বসে পড়ার অভ্যাস করতে বলুন। সোফা, চেয়ার বা বিছানায় বসে পড়লে মনযোগে বিঘ্ন ঘটে। আর টেবিলে বসে পড়লে পড়ার একটি পরিবেশ তৈরি হয় আর মনযোগী হওয়া যায়। ৪। রুটিন করে পড়াঃ

শুধু পড়ালেখা নয়, একটি নির্দিষ্ট রুটিন মেনে সব কাজই করা উচিৎ। কেননা রুটিন মাফিক কাজ করলে যেমন ডিসিপ্লিনের মধ্যে থাকা যায় তেমনি সময়ানুবর্তিতার অভ্যাস ও গড়ে উঠে। ৫। মনঃসংযোগে বিঘ্ন ঘটে এমন জিনিসগুলো থেকে বিরত থাকাঃ

পড়ার সময় মনোযোগে বাঁধা দেয় এমন সব জিনিস থেকে দূরে রাখুন সন্তানকে। যেমন - মোবাইল, কম্পিউটার, ভিডিও গেইমস ইত্যাদি সহজেই মনযোগে বিঘ্ন ঘটায়। ৬। ব্যায়াম বা খেলা ধুলা করাঃ

সব সময় পড়ালেখা নিয়ে বসে থাকলেও একঘেয়েমি চেপে বসে। তাই নিয়মিত ব্যায়াম বা খেলাধুলা করার সুযোগও দিতে হবে সন্তানকে। অবসাদ কাটাতে, মনোযোগ ধরে রাখতে ব্যায়াম দারুণ কাজের একটি জিনিস। প্রতিদিন অল্প-স্বল্প ব্যায়াম করলে দেখবেন বেশ সতেজ লাগছে শরীরটা, আগের মত পড়ার টেবিলে বসলেই ঘুমে মাথা ঢুলছে না! ৭। পর্যাপ্ত ঘুমঃ

বিজ্ঞানীদের মতে, একটানা পড়ালেখা বা অন্যান্য কাজ করে আমাদের ব্রেইন ও ক্লান্ত হয় পড়ে। তাই ব্রেইনেরও বিশ্রাম দরকার। আর এই বিশ্রামের একমাত্র উপায় হলো পর্যাপ্ত পরিমানের ঘুম। আপনার সন্তানের পর্যাপ্ত ঘুম হচ্ছে কি না সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে। ৮। খাবারের প্রতি সচেতনতাঃ

নিয়মিত পুষ্টিকর খাবার, আমিষ, শর্করা ইত্যাদি খাবারের প্রতি বিশেষ খেয়াল রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ খাদ্য শরীরে শক্তি যোগানোর সাথে আমাদের মেধাবিকাশেও অবদান রাখে তাই আপনার সন্তানের পড়ালেখার উন্নতিতে, খাবারের প্রতি সচেতনতার দিকে বিশেষ খেয়াল রাখা উচিৎ।

৯। প্রশংসা করুনঃ


পড়াশোনা পারুক বা নাই পারুক আপনার সন্তানের প্রশংসা করুন। দেখবেন সে নিজেই উৎসাহিত হয়ে অনেক কিছু করছে। বাচ্চারা / শিক্ষার্থীরা প্রশংসা ব উৎসাহ পেতে ভালোবাসে। কাজেই পড়াশোনার কারনে যদি এই প্রশংসা পাওয়া যায়, তবে তা করতে পিছপা হয়না তারা।

১০। হোম টিউটরের সহায়তা নিনঃ

একজন দক্ষ হোম টিউটর আপনার সন্তানকে দিতে পারে সঠিক গাইডেন্স আর সহজ করতে পারে আপনার কাজটিও। তাই অভিভাবক হিসেবে সন্তানের প্রতি আপনার দায়িত্বটি ভাগ করে নিন একজন ভালো হোম টিউটরের সাথে। আপনার সন্তানকে দিন একটি সুনিশ্চিত এবং নিরাপদ ভবিষ্যৎ। আর ভালো হোম টিউটর ব্যবস্থার দায়িত্বটি আমাদের। টিউটর পেতে আপনার রিকোয়ারমেন্ট রাখুন আমাদের ওয়েবসাইটে।

All Tags This Post:

Parent Guardian Students

All Comments: (0)